তৃণমূলের হিন্দি তোষণের তীব্র বিরোধিতা করলেন বাংলাপক্ষের প্রতিষ্ঠাতা গর্গ চট্টোপাধ্যায় - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Monday, October 21, 2019

তৃণমূলের হিন্দি তোষণের তীব্র বিরোধিতা করলেন বাংলাপক্ষের প্রতিষ্ঠাতা গর্গ চট্টোপাধ্যায়

ছট উপলক্ষে বছরের গোড়াতেই সরকারি তালিকায় ২ ও ৩ নভেম্বর ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল। সম্প্রতি নবান্ন ৪ নভেম্বরও ছটের জন্য ছুটি ঘোষণা করেছে। বাম জমানা পর্যন্ত ছটে একদিনই ছুটি থাকত। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসার পর ছুটি বাড়িয়ে দু’দিন করেন। কিন্তু এইবছর পশ্চিমবঙ্গে ছটে তিনদিন ছুটি দেওয়া হল । পশ্চিমবঙ্গ ভারতের একমাত্র রাজ্য যেখানে ছটপুজোয় তিন দিন ছুটি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। উত্তরপ্রদেশ, ঝড়খণ্ড এমনকি বিহারেও ছটপুজোর ছুটি দুই দিন। এছাড়াও এরাজ্যে বিহারীদের জন্য একগুছ বিশেষ সুবিধা চালু করেছে রাজ্য সরকার। বাংলার কলেজগুলোতে হিন্দি অনার্স পড়ানো হয়। হাওড়া জেলায় হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয় চালু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজের রাজ্য বিহারের তুলনায় যে তাঁরা বাংলায় ভালো আছেন তা নিজের মুখেই স্বীকার করে নিয়েছেন রাষ্ট্রীয় বিহারী সমাজের সভাপতি মণিপ্রসাদ সিং।
এই হিন্দি তোষণের ফল ভবিষ্যতে ভুগতে হবে তৃণমূলকে, এমনই মনে করছেন বাঙালি জাতীয়তাবাদী সংগঠন বাংলাপক্ষ। ওই সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠাতা গর্গ চট্টোপাধ্যায় এই মন্তব্য করেছেন। তিনি বলছেন, “তৃণমূলের এই নির্লজ্জ হিন্দি তোষণে ধিক্কার। ছটের ছুটিকে তিন দিন থেকে শূন্যতে নামিয়ে আনার নাম বাংলাপক্ষ।” সেই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “এটা বাংলা বিহার নয়। এই রাজ্যের বাসিন্দা সকলেই বাঙালি এবং বাংলা ভাষী। এখানের ভাষা হিন্দি নয়।”
ছটের ছুটি নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস রাজনৈতিক জটিলতায় পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন গর্গ চট্টোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন যে হিন্দি এবং কেন্দ্রের শাসক বিজেপির পরস্পরের পরিপূরক। সেই বিষয়টি মাথায় রেখে তৃণমূলের চলা উচিত বলেও দাবি করেছেন বাংলাপক্ষের প্রতিষ্ঠাতা।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad