গণতন্ত্র হত্যায় ত্রিপুরায় নজির বিজেপির : পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৮৫% আসন বিরোধী প্রার্থীহীন - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Saturday, July 13, 2019

গণতন্ত্র হত্যায় ত্রিপুরায় নজির বিজেপির : পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৮৫% আসন বিরোধী প্রার্থীহীন

গণতন্ত্র হত্যায় ত্রিপুরায় নজির সৃষ্টি করলো বিজেপি। রাজ্যের আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৮৫শতাংশ আসনে বিরোধীদের প্রার্থী দিতে না দিয়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিততে চলেছে বিজেপি। পশ্চিমবঙ্গে গত পঞ্চায়েত ভোটে তৃণমূল বিরোধীদের প্রার্থী না দিতে দিয়ে ৩৪শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেয়েছিল। ত্রিপুরায় বিজেপি সেই সংখ্যাকে লজ্জায় ফেলে দিল। ত্রিপুরায় বিজেপি বিরোধীদের উপর আক্রমণ চালিয়ে, ভয় এবং সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করেছিল, প্রশাসনিক দপ্তরের মধ্যে গুন্ডাবাহিনী মজুত রেখে প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা দিতে দেয়নি - সাধারণ মানুষ এই অভিযোগ করেছেন |

ত্রিপুরায় ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের মোট আসন ৬৬৪৬টি। এরমধ্যে লড়াই হবে ৯৯৪টি আসনে। পঁয়ত্রিশটি পঞ্চায়েত সমিতির মোট আসন ৪১৯টি। লড়াই হবে ৮২ আসনে। ২০টি পঞ্চায়েত সমিতি বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় জিতে গেছে বিজেপি। গ্রাম পঞ্চায়েতে মোট ৬১১১টি আসন। লড়াই হবে মাত্র ৮৩৩টি আসনে।

গণতন্ত্র হত্যার অভিযান চলেছে জোরকদমে। যে সামান্য আসনে ভোট হতে চলেছে তাও প্রহসনাত্মক নির্বাচনের পথেই নিয়ে যেতে চাইছে বিজেপি স্পষ্ট হয়ে গেছে। বিরোধীদের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনকেও হস্তক্ষেপ করার জন্য একাধিকবার বলা হয়েছিল। কিন্তু রাজ্য নির্বাচন কমিশন গণতন্ত্র রক্ষা করতে কোনো পদক্ষেপই করেনি। ব্যাপক চাপ এবং হুমকির মুখে প্রধান বিরোধী দল সিপিআই (এম) প্রার্থীদের ১২১ আসনে জোর করে জবরদস্তি মনোনয়ন প্রত্যাহার করিয়েছে বিজেপি। ঋষ্যমুখ, ভরতচন্দ্রনগর, ধর্মনগর, পানিসাগর, কুমারঘাট, সোনামুড়া, উদয়পুর, কমলপুর থেকে জোর করে মনোনয়ন প্রত্যাহার করানো হবেছে সিপিআই (এম) প্রার্থীদের। এই ঘটনায় অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচন সম্পন্ন করতে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে মানুষের মধ্যে।

বৃহস্পতিবার ছিল ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের দিন। বিজেপি’র হুমকি, প্রবল চাপের মুখে জীবন বাঁচাতে মনোনয়ন প্রত্যাহারে বাধ্য হয়েছেন বামফ্রন্ট প্রার্থীরা। খুন, এলাকাছাড়া করা, বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেওয়া, দোকান বন্ধ করে দেওয়ার মতো হুমকি চলছিল শাসক দলের পক্ষ থেকে। তাতেও বামফ্রন্ট প্রার্থীরা মনোনয়ন প্রত্যাহার না করার অবস্থানে অনড় থাকায় বৃহস্পতিবার মনোনয়ন প্রত্যাহারের দিনে সকাল থেকে জোর জবরদস্তি বাড়ি থেকে তাঁদের ব্লকে তুলে নিয়ে যায়, মনোনয়ন প্রত্যহার করায় বিজেপির দুষ্কৃতিরা। রাস্তায় বাধা, ব্লক অফিস ঘেরাও করে রাখে বিজেপি আশ্রিত সমাজ বিরোধীরা। ছিঁড়ে ফেলা হয় মনোনয়ন।

ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের ৬ হাজার ৬৪৬টি আসনের জন্য মোট ৮ হাজার ৪০৫ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সোমবারই শেষ হয়েছে মনোনয়নপত্র গ্রহণপর্ব। মঙ্গলবার সমস্ত মনোনয়ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হয়েছে। ১১ জুলাই মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। ভোট নেওয়া হবে ২৭ জুলাই। গণনা ৩১ জুলাই। ৫ আগস্টের মধ্যে সম্পন্ন হবে গোটা নির্বাচন প্রক্রিয়া।



No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad