গড়িয়াহাটে 'বিহারী' হকারদের দ্বারা আক্রান্ত বাংলা পক্ষর সহেলী - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Tuesday, June 25, 2019

গড়িয়াহাটে 'বিহারী' হকারদের দ্বারা আক্রান্ত বাংলা পক্ষর সহেলী

তারিখটা ছিল ২০ শে জুন, রাত সাড়ে আটটা, গড়িয়াহাটের মোড়, পুলিসের গাড়িতে তোলা হল দুই বিহারী হকারকে, সাথে আক্রান্ত সহেলীকে নিয়ে যাওয়া হল এফ আই আর করার জন্য। গড়িয়াহাট মোড় থেকে গড়িয়াহাট থানা, গাড়িতে মিনিট তিনের দূরত্ব। তার মধ্যে পুলিসের গাড়িতেই বমি শুরু, নাক দিয়ে রক্তপাত সহেলীর। মাথায় গুরুতর চোট, চোখে ঝাপসা দেখছে। থানায় পৌঁছনোর সাথে সাথেই অবস্থার অবনতি, পুলিসের গাড়িতেই আমরির ইমার্জেন্সিতে নিয়ে যাওয়া হয়। সিটি স্ক্যান হয়, সিটি স্ক্যানে ইন্টারন্যাল হ্যামারেজ বা বড় আঘাত ধরা পড়েনি, কিন্তু পরদিন এম আর আই তে দেখা যায়, নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত, মাথার পিছনে বড় চোট। কথা জড়িয়ে যাচ্ছে, ঝাপসা দেখছে সহেলী। স্মৃতিশক্তিতেও সমস্যা।

                           (প্রতীকী ছবি)
সেদিনের ঘটনায় বিহারীদের হকারদের হাতে আক্রান্ত হয় বাংলা পক্ষর সহেলী, ৬৬ বছরের বৃদ্ধ অরুন সেন এবং অনির্বাণ ভট্টাচার্য। পায়ের নখ উপরে রক্তাক্ত হয় কোন্নগরের ছেলে অনির্বাণ।

এই আক্রমণের কারণ কি? বাংলা পক্ষর পক্ষ থেকে শান্তিপূর্ণ ভাবে 'বয়কট বাঙালি বিরোধী গায়ক পাপন' কর্মসূচ লিফলেট চলছিল। গড়িয়াহাটের নানা দোকানেও লিফলেট বিলি করা হয়। এক 'বিহারী'র লস্যির দোকানে লিফলেট দেয় অরুন সেন। কিন্তু বাংলা লিফলেট দেখেই ছুঁড়ে ফেলে দেয় ওই লস্যিওয়ালা। অরুন সেন জানতে চান, কেন এমন করলেন? কলকাতায় কবছরের ব্যবসা? হিন্দিতে উত্তর আসে। বাংলায় উত্তর দিতে বললে শুরু হয় বচসা। অরুন সেনকে মারধোর করা হয়, ভেঙে দেওয়া হয় চশমা। পাশে ছিল সহেলী। খবর যায় বাংলা পক্ষর বাকিদের কাছে। বেশ কয়েকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছলে, ওই বিহারী দুষ্কৃতীকে থানায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা হয়। তখনই ওই লস্যিওয়ালার স্ত্রী এবং ভাইরা ধস্তাধস্তি শুরু করে। ওনার স্ত্রী সহেলীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। দোকানের লোহায় লেগে গুরুতর চোট লাগে মাথার পিছনে। তারপরই পুলিস আসে। গ্রেপ্তার করা হয় দুজনকে।

আমরির ইমার্জেন্সিতে সহেলীর বয়ান রেকর্ড করা হয়।

         (গড়িয়াহাট থানায় দায়ের হওয়া এফ আই আর এর কপি)

দুদিন পর ২২ শে জুন, বাংলা পক্ষর পক্ষ থেকে থানায় যাওয়া হয়। দেখা যায় ওই লস্যিওয়ালার অভিযুক্ত স্ত্রী পলাতক। কিন্তু গড়িয়াহাট মোড়ে তাকে দিব্যি ব্যবসা করতে দেখা যায়। তখন বাংলা পক্ষর পক্ষ থেকে পুলিসে জানানো হয় এবং ফেসবুক লাইভ করা হয়।

অন্যদিকে রাজনৈতিক রঙ দিয়ে, কয়েকজন ঘটনাকে বিকৃত করে প্রচার করে।

আক্রান্ত সহেলী জানান, 'ওই বিহারী লস্যিওয়ালার ও তার পরিবার আমাদের আক্রমণ করে। আমায় ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। আমার চিকিৎসা চলছে। মাথায় নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত। চোখে ঝাপসা দেখছি এবং কথা জড়িয়ে যাচ্ছে। সুস্থ হতে কয়েকমাস লাগবে। আমি দোষীদের শাস্তি চাই। ওরা বাংলায় থেকে ব্যবসা করবে এবং কথায় কথায় বাঙালির গায়ে হাত তোলে। আমরা সকলেই জানি। আমি ওদের শাস্তি চাই। যারা সেদিনের ঘটনা নিয়ে অপপ্রচার করছে তাদেরও শাস্তি চাই। '

অভিযুক্তর দোকানের সামনে বাংলা পক্ষর মুখ গর্গ চ্যাটার্জীর ফেসবুক লাইভের লিংক

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=10107749438884151&id=34190

(নিজস্ব সংবাদদাতা, বাংলার চোখ)

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad