বাংলায় ১১৫ কিলোমিটার বেগে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ফণী - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, May 1, 2019

বাংলায় ১১৫ কিলোমিটার বেগে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ফণী






Related image







২০০৯ সালে মে মাসে ঘণ্টায় প্রায় ১২০ কিলোমিটার গতিতে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলে আছড়ে পড়েছিল ঘূর্ণিঝড় আয়লা।  ফণির মধ্য দিয়েই আয়লার সেই আতঙ্ক কী ফের ফিরতে চলেছে বাংলায়?

আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা কিন্তু আগে থেকেই সতর্ক করছেন। শুক্রবার ওড়িশার উপকূলে ঘণ্টায় প্রায় ২০৫ কিলোমিটার গতিতে ফণী আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তার পর ফণীর অভিমুখ হবে বাংলার দিকে। বাংলায় গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১১৫ কিলোমিটারের কাছাকাছি।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, শুক্রবার থেকেই এ রাজ্যে বৃষ্টি শুরুর সম্ভাবনা রয়েছে। শনি এবং রবিবার কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, দুই মেদিনীপুর, দুই বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হবে। কোথাও কোথাও প্রতি ঘণ্টায় ৯০ থেকে ১০০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে।


দিঘা, মন্দারমনি, সাগর, বকখালিতে সমুদ্র উত্তাল হয়ে উঠবে এই সময়। ইতিমধ্যেই মৎসজীবীদের সমুদ্র নামতে নিষেধ করা হয়েছে। সতর্ক করা হয়েছে চাষিদের।  পর্যটকদের ওই সব এলাকা থেকে নিরাপদ স্থানে সরে আসতে বলা হয়েছে।

ঝড়ের ধাক্কায় ভেঙে পড়তে পারে কাঁচা বাড়ি, গাছপালা, পুরনো বাড়িও। ট্রেন চলাচল বিপর্যস্ত হতে পারে। ফসলের ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।  সে করণে উপকূলবর্তী এলাকা থেকে গ্রামবাসীদের নিরাপদে সরে আসতে অনুরোধ করা হয়েছে।  এখনও পর্যন্ত দক্ষিণভারত, ওড়িশা এবং এ রাজ্যের মধ্যে প্রায় ৪৩টি দূরপাল্লার ট্রেন বাতিল হয়েছে।

রাজ্য প্রশাসন পরিস্থিতির উপর নজর রেখেছে। ইতিমধ্যেই নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছেন প্রশাসনিক কর্তারা। দক্ষিণ-পূর্ব রেল আগাম জানিয়ে রেখেছে, পুরী, ভূবনেশ্বর এবং দক্ষিণ ভারতগামী এক্সপ্রেস ট্রেনের সফরসূচি প্রয়োজনে পরিবর্তিত বা বাতিল করা হতে পারে।


No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad