কলেজ ষ্ট্রীটে অমিত শাহের রোড শো-এ গুন্ডামি, বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙল বিজেপি - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Tuesday, May 14, 2019

কলেজ ষ্ট্রীটে অমিত শাহের রোড শো-এ গুন্ডামি, বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙল বিজেপি












Image may contain: food











মঙ্গলবার কলকাতায় অমিত শাহের রোড শো-তে নিজেদের ক্ষমতা আস্ফালন দেখাতে গিয়ে রীতিমতো তাণ্ডব চালাল বিজেপি। এদিন শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক মেজাজে ছিলেন গেরুয়া দলের কর্মী-সমর্থকরা। রোড শো শুরুর আগে ধর্মতলায় নির্বাচন কমিশনের গাড়িতে ভাংচুর চালানো হয়। তবে এই সমস্ত কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছে কলেজ স্ট্রিট চত্বরে বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের তাণ্ডব।


কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ স্ট্রিট ক্যাম্পাস এবং বিদ্যাসাগর কলেজ ক্যাম্পাসে হামলা চালিয়েছে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। বাইরে থেকে পাথর, ইট ছোড়া হয়েছে। বাইকে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। এখানেই শেষ নয়, দরজা ভেঙে বিদ্যাসাগর কলেজে ঢুকে ভাঙা হয়েছে বিদ্যাসাগরের ঐতিহ্যবাহী মূর্তি। গেরুয়া দলের মারমুখী কর্মী সমর্থকদের হাত থেকে নিস্তার পাননি সংবাদমাধ্যমের কর্মীরাও।



মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ধর্মতলা থেকে সিমলা স্ট্রিট পর্যন্ত রোড শো করেন অমিত শাহ। মিছিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছনোর পরে টিএমসিপি সমর্থকরা বিজেপি সভাপতিকে কালো পতাকা দেখান বলে অভিযোগ। দেওয়া হয় 'অমিত শাহ গো ব্যাক' শ্লোগান। পালটা এবিভিপি সমর্থকরা শ্লোগান দিতে থাকেন। শুরু হয় তাণ্ডব। যার জেরে গোটা কলেজ স্ট্রিট চত্বরে উত্তেজনা ছড়ায়। বিজেপি সমর্থকদের ছোড়া পাথরের আঘাতে জখম হয়েছে সংবাদমাধ্যমের কয়েকজন কর্মী।

এর পরেই অমিত শাহের সামনে 'গুন্ডামি' শুরু করেন গেরুয়া সমর্থকরা। পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে হাতে আইন নিজেদের হাতে তুলে নেন তাঁরা। এক সময় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করে মারমুখী বিজেপি সমর্থকরা। তাতে বাধা দেয় পুলিশ। ফলে পুলিশকর্মীদের সঙ্গে বিজেপি সমর্থকদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়।

পুলিশের বাধা পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় গেট ও ভবন লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে শুরু করেন বিজেপি সমর্থকরা। পরে বিদ্যাসাগর কলেজে বাইরে থেকে হামলা চালায় বিজেপি কর্মীরা। তারা দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকে বলে স্থানীয় পড়ুয়াদের বক্তব্য। চূড়ান্ত উত্তেজনার মধ্যেও রোড শো থামাননি বিজেপি সভাপতি।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিদ্যাসাগর কলেজে হামলার ঘটনায় বাংলার সাংস্কৃতিক মহলে নিন্দার ঝড় উঠেছে। বিশেষত ঝামেলা শুরু হওয়ার পরেও অমিত শাহ যে ভাবে চালিয়ে গিয়েছেন, তাতে বিস্মিত অনেকে। গোটা বিষয়টি বাংলার সংস্কৃতির সঙ্গে মেলে না বলে তাঁদের অভিমত।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad