ত্রিপুরায় চাপে বিজেপি, কংগ্রেসে গেলেন জোটসঙ্গী আইপিএফটির তিন শীর্ষ নেত্রী - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Sunday, March 31, 2019

ত্রিপুরায় চাপে বিজেপি, কংগ্রেসে গেলেন জোটসঙ্গী আইপিএফটির তিন শীর্ষ নেত্রী








Image result for bjp













লোকসভা নির্বাচনের মুখে ত্রিপুরায় চরম অস্বস্তিতে বিজেপি। রবিবার কংগ্রেসে যোগ দিলেন জোট শরিক আইপিএফটির তিন নেত্রী। তাঁদের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালেন প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির সভাপতি প্রদ্যোৎকিশোর মাণিক্য দেববর্মণ।

গত বিধানসভা নির্বাচনে আঞ্চলিক দল আইপিএফটির সঙ্গে জোট বেঁধে ৬০টি আসনের মধ্যে ৪৪টিতে জিতে ত্রিপুরায় সরকার গঠন করে বিজেপি। বিপ্লব দেবের নেতৃত্বে গঠিত মন্ত্রিসভায় অর্থমন্ত্রীর পদ পান আইপিএফটির প্রতিষ্ঠাতা এন সি দেববর্মা এবং আদিবাসী উন্নয়ন দফতরের মন্ত্রীর পদ অলঙ্কৃত করেন দলের সাধারণ সম্পাদক মেবার কুমার জামাতিয়া।

এদিন তাঁদের প্রতি কটাক্ষ হেনে সাংবাদিক সম্মেলনে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বলেন, 'মানুষ বিশ্বাস করেছিল যে, একদিন তিপরাল্যান্ড জন্ম নেবে। কিন্তু তাঁদের বোকা বানিয়ে প্রতারিত করা হয়েছে। রাজ্য মন্ত্রিসভার কিছু সদস্য ত্রিপুরাবাসীর সঙ্গে প্রবঞ্চনা করেছেন।'

প্রদ্যোৎকিশোর মাণিক্য দেববর্মণের অভিযোগ, গোড়ায় বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে কংগ্রেসের পাশে থাকলেও পরে বিজেপির পাতা ফাঁদে পা দেন আইপিএফটির শীর্ষ নেতাদের একাংশ। তাঁর দাবি, তিপরাল্যান্ড বাস্তবায়িত করার নামে ভূমিপুত্রদের প্রতারণা সহ্য করতে না পেরেই জোট ভেঙে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন ওই দলের তিন নেত্রী।



তিনি জানিয়েছেন, সংবিধানের অষ্টম তফসিলে কোকবরক ভাষার অন্তর্ভুক্তি নিয়ে ত্রিপুরার সমস্ত আঞ্চলিক দলকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কংগ্রেস। এছাড়া ত্রিপুরা এডিসি-তে সরাসরি অনুদান পৌঁছনোর ব্যাপারেও আশ্বাস দিয়েছে রাহুল গান্ধীর দল। পাশাপাশি, নাগরিক সংশোধন বিল রদ করা নিয়েও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কংগ্রেস। 

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad