বেলঘরিয়া স্টেশনে হিন্দি আগ্রাসন – ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাঙালি! - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Thursday, December 27, 2018

বেলঘরিয়া স্টেশনে হিন্দি আগ্রাসন – ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাঙালি!

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ শিয়ালদহ থেকে ট্রেনে করে ব্যারাকপুর যাওয়ার পথে যতগুলো স্টেশন পরে, তার মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য স্টেশন হল ‘বেলঘরিয়া’। প্রতিদিন অগণিত যাত্রী এই স্টেশনটি ব্যবহার করে থাকেন ট্রেনে করে কোলকাতা কিংবা মফঃস্বল অঞ্চলগুলোতে যাওয়ার জন্য এবং প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য যে বেলঘরিয়া স্টেশন ব্যবহারকারী অধিকাংশ যাত্রীই বাঙালি। কিন্তু সম্প্রতি কোনো এক অজানা কারণে বেলঘরিয়া স্টেশনে রেল কর্তৃপক্ষের বাংলার পরিবর্তে হিন্দি ব্যবহার করার প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

উদাহরণস্বরূপ প্রথমেই কেন্দ্রীয় সরকারের ‘স্বচ্ছ ভারত’ বিজ্ঞাপনের কথা বলা যেতে পারে। বেলঘরিয়া স্টেশনে ঢোকার মুখেই এই ‘স্বচ্ছ ভারত’-এর বিজ্ঞাপনে ল্যাটিন হরফে হিন্দিতে বলা হচ্ছে ‘HAMARA STATION, HAMARI SHAAN’। অথচ স্টেশন সংলগ্ন সকল বাসিন্দাই বাঙালি এবং মজার ব্যাপার এই
যে উত্তর প্রদেশের কোনো রেল স্টেশনে কিন্তু ‘স্বচ্ছ ভারত’-এর বিজ্ঞাপনে বাংলায় ‘আমার স্টেশন, আমার গর্ব’ লেখা থাকতে দেখা যায় না।

এরপর চলে আসা যাক ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মে প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি নবনির্মিত শৌচালয়ের কাছে, যেখানে বাংলায় ‘প্রতিবন্ধী শৌচালয়’-এর বদলে ‘দিব্যাংগ প্রতিবন্ধী শৌচালয়’ লেখা হয়েছে। এ কথা সর্বজনবিদিত যে বাংলায় ‘দিব্যাংগ’ বলে কোনো শব্দ নেই, অর্থাৎ রেল কর্তৃপক্ষ বেলঘরিয়া স্টেশনে জোর করে হিন্দি শব্দ ‘দিব্যাঙ্গ’ ব্যবহার করার মাধ্যমে বাংলা ভাষার হিন্দিকরণ করতে চাইছে।

এবার হাঁটতে হাঁটতে যদি একেবারে ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মের সামনের দিকে চলে আসা যায়, তবে দেখা যাবে রেলের হলুদ রঙের নিজস্ব কিছু সাইনবোর্ড, যেখানে কালো কালিতে কিছু প্রতীকী অক্ষর হিন্দি এবং ইংরেজিতে লেখা আছে, কিন্তু বাংলা একেবারেই ব্রাত্য সেখানে।


এবার প্ল্যাটফর্ম টিকিটের ব্যাপারে চলে আসা যাক, যা কেটে আমাদের সংবাদমাধ্যমের প্রত্তিনিধি পুরো স্টেশনটি পর্যবেক্ষণ করেন। বেলঘরিয়া স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম টিকিটের সবচেয়ে বিস্ময়কর ব্যাপার এই যে টিকিটের কোনো অংশেই স্টেশনের নাম বাংলাতে লেখা নেই অথচ হিন্দিতে স্টেশনের নাম ঠিক লেখা আছে। এছাড়াও উল্লেখযোগ্য ব্যাপার এই যে টিকিটের সম্মুখভাগে ‘শুভ যাত্রা’ ছাড়া আর কোনো বাংলা শব্দ লেখা নেই, বাকি যা কিছু লেখা আছে সবই হিন্দি এবং ইংরেজিতে।

সর্বোপরি ভয়াবহ ঘটনা এই যে, বিগত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে স্টেশনে ট্রেন আসার খবর বাংলার আগে হিন্দিতে ঘোষিত হচ্ছে, যা পাঁচ বছর আগেও বেলঘরিয়া স্টেশনের মত বাঙালি অধ্যুষিত অঞ্চলে ভাবা যেত না। এই নিয়ে একজন স্থানীয় বাঙালি যুবকের সাথে কথাবার্তাতেই বেরিয়ে এল বেলঘরিয়াতে বসবাসকারী আপামর সকল বাঙালির ক্ষোভ। ঐ যুবকের মতে, বেলঘরিয়া স্টেশন সংলগ্ন অঞ্চল বরাবরই বাঙালি অধ্যুষিত অঞ্চল। কিন্তু সম্প্রতি গোবলয় থেকে বাংলায় প্রচুর পরিমাণে হিন্দুস্তানির আগমনের ফলে রেল কর্তৃপক্ষ বাংলার তুলনায় হিন্দিকে প্রাধান্য দিচ্ছে এবং একইসাথে বাঙালির উপর হিন্দি চাপানোর অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, যে বিমাতৃসুলভ আচরণ কেন্দ্রীয় সরকার বাঙালি তথা সকল অহিন্দিভাষী জাতির সাথে সত্তর বছর ধরে করে আসছে।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad