নানা রাজ্যে বাঙালি খেদানোর ডাক বিজেপির! এবার কর্ণাটক? আতঙ্কে ভুগছে বাঙালি। - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Monday, December 3, 2018

নানা রাজ্যে বাঙালি খেদানোর ডাক বিজেপির! এবার কর্ণাটক? আতঙ্কে ভুগছে বাঙালি।

আসামে বাঙালি বিপন্ন, বাঙালির গণ কবর খোঁড়া হচ্ছে। প্রায় ৩৮ লাখ বাঙালিকে রাষ্ট্রহীন করে খেদানোর ষড়যন্ত্র চলছে। বাঙালি উদ্বেগে আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছে, শেষ ক মাসে প্রায় ৩৭ জন বাঙালি আত্মহত্যা করেছে, খুন ৬ বাঙালি, মৃতদের অধিকাংশই বাঙালি হিন্দু।


শুধু আসাম নয়, বিজেপি শাসিত বেশিরভাগ রাজ্যেই বাঙালি অত্যাচারিত। মনিপুর, অরুণাচল প্রদেশেও চলছে বাঙালি খেদানো। ত্রিপুরায় বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বাঙালিকে ব্যাপক অত্যাচার শুরু হয়েছে বলে অভিযোগ। বিজেপির জোট সঙ্গী টি আই পি টি বাঙালিকে নানা জায়গায় মারধোর করছে। এমনকি, বিজেপি শাসিত ছত্রিশগড়ের দণ্ডকারণ্য থেকে বাঙালিকে তাড়ানোর পরিকল্পনা চলছে, মারধোরের কারণে আতঙ্কে বাঙালি। দেশভাগের পর দণ্ডকারণ্যে আশ্রয় পেয়েছিল উদ্বাস্তু নমঃশূদ্ররা। গরীব নমঃশূদ্রদের মারধোরের প্রভাব ভালো হবেনা বলেই মত রাজনৈতিক মহলের।


এবার অভিযোগ কর্ণাটকে, সেখানে ক্ষমতায় নেই বিজেপি। কিন্তু ব্যাঙ্গালোরের বিধায়ক অরভিন্দ লিম্বাভালি বাঙালি বস্তি থেকে বাঙালিকে উচ্ছেদের ডাক দিয়েছেন। তিনি নিজে গিয়ে শাসিয়ে এসেছেন, কর্ণাটক ছাড়তে বলেছেন প্রায় ১৩ হাজার বাঙালি নির্মাণ শ্রমিককে, প্রত্যেকের কাছেই বৈধ নথি আছে। কিন্তু তারপরও বাংলাদেশি বলে হেনস্থা করা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর। ব্যাঙ্গালোর পুরসভা কাউকে উচ্ছেদ করছে না বলে জানয়েছে, এসব ব্যক্তিগত ভাবে করছেন বিজেপি বিধায়ক।

উদ্বেগে বাংলার সরকার, সিপিএম ও তৃণমূলের শরণাপন্ন কর্ণাটকের পরিযায়ী বাঙালি শ্রমিকরা। আশ্বাস মিলেছে সব তরফেই। বিজেপি কেন বারবার টার্গেট করছে বাঙালিকে? বাঙালির সাথে এত শত্রুতা কেন? উঠছে প্রশ্ন। বাংলায় ভোটে এর বিরূপ প্রভাব পড়ার ব্যাপক সম্ভবনা দেখছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।


No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad