বাবুল কে আর সাংসদ হিসাবে দেখতে চায় না আসানসোল! - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Thursday, December 13, 2018

বাবুল কে আর সাংসদ হিসাবে দেখতে চায় না আসানসোল!

২০১৪ তে উত্থান, লোকসভা ভোটে আসানসোল থেকে জয়, তারপরই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। রাজনৈতিক উত্থান ধুমকেতুর মতো। তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফাঁক গলে জিতেছিল বাবুল সুপ্রিয়, দোলা সেনকে প্রার্থী করায় মলয় ঘটকের লবি বাবুলকে জিততে সহায়তা করেছিল এমন অভিযোগ শোনা যায়।

পাঁচ বছর কেটে গেছে, মন্ত্রী ও সাংসদ বাবুল কি করলেন আসানসোলের জন্য? সবার মুখে মুখে একটাই উত্তর, বড় ভুল হয়েছে বাবুল কে ভোট দিয়ে। কোনো কাজই করেনি বাবুল, কোনো প্রতিশ্রুতি পূরণের চেষ্টাটিও করেননি তিনি। হিন্দুস্তান কেবলস নিয়ে কোনো কাজই করেননি। তার বড় সাফল্য বলতে, আসানসোলে রাজধানী এক্সপ্রেসের স্টপ দেওয়া। যেকোনো কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিজের রাজ্যের জন্য করেন, কেন্দ্র থেকে বেশি বরাদ্দ আনার চেষ্টাও করেন, কিন্তু বাবুলের নিজের মন্ত্রকই আসানসোলের নানা কারখানা বন্ধ করে দিচ্ছে। 

কিন্তু, তাকে বারবার সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার প্ররোচনা দিতে আগে দেখা যায়। তার ব্যবহার ও কথাবার্তা অত্যন্ত খারাপ ও কুরুচিপূর্ণ। রানীগঞ্জ ও আসানসোল দাঙ্গায় তার ভূমিকা ক্ষতিকারক বলেই মত আসানসোলবাসীর।  তিনি নাকি দাঙ্গার আগের দিন রাত ২ টা পর্যন্ত পার্টি অফিসে দাঙ্গার পরিকল্পনা করেছেন নিজেহাতে, আসানসোলে কান পাতলেই শোনা যায় একথা।


বাবুল এবার ভোটে হারবেই, বাংলার চোখের তদন্তে উঠে এল এই তথ্য। আত্মবিশ্বাসী তৃণমূলও। আসানসোলের এক হেভিওয়েট নেতার মতে, "গত বার আমাদের ভুলে আসানসোল হেরেছি। এবার আমরা জিতছি। বাবুল কিছুই করেনি। সে মানুষের পায়ে পড়লেও তাকে আর কেউ ভোট দেবে না। গুণ্ডামি ছাড়া কি করেছে একটা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী?"

বিজেপির এক নেতা (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) বলেন, "বাবুল না হয়ে তৃণমূলের কেউ সাংসদ হলে অন্তত কাজ হতো। আমি নিজে বাবুলের নানা সভার ব্যবস্থা করেছি, কিন্তু সাংসদ বাবুলের সাথে মানুষ বাবুলও অত্যন্ত খারাপ। আমার তো ওর সাথে কাজ করতে এখন খারাপ লাগে।" কি হবে আসানসোল লোকসভায়? প্রশ্ন শুনেই তিনি বলেন, "এলাকায় খবর নিন, বুঝে যাবেন। কে জিতবে জানি না। তবে বাবুল হারছেই। দল প্রার্থী বদলালেই মঙ্গল।"

এখন দেখার মন্ত্রী বাবুলকে পুনরায় প্রার্থী করে কিনা বিজেপি!

1 comment:

  1. আসানসোল বিজেপির বাবলুকে চায়না পশ্চিমবঙ্গ মমতা ব্যানার্জি কে মুখ্যমন্ত্রী রুপে চায়না, বামপন্থী রাজনীতি একমাত্র বিকল্প।
    আগামী ছয় মাসের মধ্যে ভারতবাসী বামপন্থীদের স্বাগত করবে।

    ReplyDelete

Post Bottom Ad