মন্দির নয় ভাত চাই--রাজধানীর রাজপথ কাঁপালো লক্ষাধিক কৃষক - Banglar Chokh | True News for All

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Friday, November 30, 2018

মন্দির নয় ভাত চাই--রাজধানীর রাজপথ কাঁপালো লক্ষাধিক কৃষক

               শুক্রবার কৃষক বিক্ষোভে উত্তাল দিল্লি


কৃষক বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠল রাজধানী দিল্লি। ঋণ মকুব ও ফসলের ন্যায্য দামের দাবিতে সংসদ ভবন অভিযানকে কেন্দ্র করে শুক্রবার দিল্লি শুনলো লক্ষাধিক কৃষকের গর্জন । যানজটে স্তব্ধ হয়ে যায় জওহরলাল নেহরু মার্গ-সহ দিল্লির প্রধান রাস্তাগুলি। কৃষকদের মুখে স্লোগান ছিল, ‘অযোধ্যা চাই না, আমাদের ঋণ মকুব করা হোক’ (অযোধ্যা নাহি, কর্জি মাফ চাহিয়ে)।
বিক্ষোভ সমাবেশের উদ্যোক্তা, ২০০-রও বেশি কৃষক সংগঠনের মঞ্চ, সর্বভারতীয় কিসান সংঘর্ষ সমন্বয় কমিটির নেতাদের দাবি, নরেন্দ্র মোদী সরকারের উপর চাপ বাড়াতে এই মুহূর্তে প্রায় দুই লক্ষ চাষি ‘দিল্লি চলো’-র ডাকে সাড়া দিয়ে রাজধানীতে পৌঁছেছেন। দিল্লি পুলিশ অবশ্য নানা ভাবে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ কমিটির নেতা অভীক সাহার। তাঁর বক্তব্য, রামলীলা ময়দান থেকে মিছিলে বাধা, সমাবেশে ভিড় কমানোর চেষ্টা হচ্ছে। হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ থেকে আসা চাষিদের বাস রাস্তায় আটকে দেওয়া হচ্ছে। ঋণের বোঝায় নুইয়ে পড়ে যে দুই কৃষক আত্মঘাতী হয়েছিলেন তামিলনাড়ুতে, তাঁদের ছবি নিয়ে তামিলনাড়ু থেকে প্রায় হাজার দেড়েক কৃষক গতকাল এসে পৌঁছন দিল্লিতে। এ দিন তাঁদের সংসদ ভবনে ঢুকতে না দেওয়া হলে তাঁরা উলঙ্গ হয়ে মিছিলে হাঁটার হুমকি দিয়েছেন।

মূলত বামপন্থী দলগুলির ডাকে তাঁদের দাবিদাওয়া নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার কৃষক গতকালই পৌঁছেছিলেন রামলীলা ময়দানে। রামলীলা ময়দান কাল থেকেই ভরে যায় লাল পতাকায়। সেখান থেকেই এ দিন সকালে শুরু হয় কৃষকদের সংসদ অভিযান। ট্রেনে ও ট্রাকে চেপে অন্ধ্রপ্রদেশ, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, উত্তরপ্রদেশ সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কৃষকরা দলে দলে গতকালই এসে পৌঁছন দিল্লিতে। গত তিন মাসে এই নিয়ে তিন বার দাবিদাওয়া জানাতে রাজধানীতে হাজির হয়েছেন কৃষকরা। কিন্তু এবারের মিছিল সব কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছে বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

রামলীলা ময়দানে কৃষকদের জমায়েত

কৃষকদের মূলত তিনটি দাবি-- কৃষিঋণ মকুব, চাষের খরচের দেড় গুণ ফসলের দাম এবং চাষিদের সঙ্কটকে সামনে রেখে সংসদের বিশেষ অধিবেশন।

কিষান মুক্তি মার্চ কে সামনে রেখে আবারও এককাট্টা বিজেপি বিরোধীরা। যন্তর মন্তরে কৃষকদের আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে উপস্থিত ছিলেন রাহুল গান্ধী, সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি,তৃণমূল সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী,সাংসদ শরদ যাদব,এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার, জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লাহ, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল প্রমুখ। রাহুল গান্ধী বলেন,"শিল্পপতিদের ঋণ মকুব হলে কৃষকদের ঋণ মকুব করা কেন হবে না ?"

             কৃষকদের সমর্থনই এককাট্টা বিরোধীরা

লোকসভা ভোটের আগে হিন্দু-মুসলমান, রামমন্দির, হনুমান ইত্যাদি নানা ধর্মীয় বিষয়কে বারংবার তুলে এনে কর্মসংস্থান,স্বাস্থ্য,শিক্ষার মতো মৌলিক বিষয় গুলি কে চেপে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। কিন্তু সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের কাছে মন্দির মসজিদের থেকে পেটের ভাত যে সবার আগে দরকার তা রাজধানীর রাজপথ কাঁপিয়ে আবারও স্পষ্ট করে বুঝিয়ে দিল লক্ষাধিক অন্নদাতা।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad